ব্রেকিং নিউজ
শ্রীমঙ্গল থানার নতুন ওসি মাহবুবুর রহমান:অবশেষে ওসি জলিল সুনামগঞ্জে বদলী

শ্রীমঙ্গল থানার নতুন ওসি মাহবুবুর রহমান:অবশেষে ওসি জলিল সুনামগঞ্জে বদলী

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধিঃমৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল থানার ওসি আব্দুল জলিলকে অবশেষে সুনামগঞ্জ জেলায় বদলী করা হয়েছে। হাজারো তদবির করেও তিনি বদলী ঠেকাতে পারেনি। ২৭ জুলাই সোমবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে শ্রীমঙ্গল থানার ওসি হিসেবে মাহবুবুর রহমান যোগদান করেন। তিনি এর আগে জুড়ী থানার ওসি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। নতুন ওসির যোগদানে শ্রীমঙ্গলের সর্বমহলে স্বস্তি ফিরে এসেছে। কারণ নবাগত ওসি মাহবুবুর রহমান এর আগে শ্রীমঙ্গল থানায় সহকারী পুলিশ পরিদর্শক (এস আই)হিসেবে অত্যন্ত দক্ষতার সাথে কাজ করে সুনাম অর্জন করেন। আব্দুল জলিল রাজনগর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) থেকে ২০১৪ সালের ৪ এপ্রিল শ্রীমঙ্গল থানায় ওসি হিসেবে যোগদান করেন । যোগদানের পর থেকে শ্রীমঙ্গলে চুরি, ডাকাতি, খুন বৃদ্ধিসহ আইনশৃঙ্খলার চরম অবনতি হয়। এ সংক্রান্ত খবরও বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে। শ্রীমঙ্গল উপজেলার আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত মিটিংয়ে এ পরিস্থিতি নিয়ে ক্ষোভ ও উদ্বেগ পর্যন্ত প্রকাশ করেছেন খোঁদ ক্ষমতাসীন দলের নেতারা। জানা গেছে, গত ২২ এপ্রিল দৈনিক জনতায় ওসির ঘুষ বাণিজ্য শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ হলে পরদিন ২৩ এপ্রিল বৃহস্পতিবার রাতে সাংবাদিক সাইফুল ইসলামকে ওসি জলিল গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে অমানবিক নির্যাতন করে। এ ঘটনার পর ১জুন ওসি আব্দুল জলিলকে ঢাকা রেঞ্জে বদলী করা হয়। পরে ওসি জলিল উচ্চ পদস্থ এক কর্মকর্তাকে ম্যানেজ করে সে বদলী আদেশ স্থগিত করেন। বদলী আদেশ স্থগিত হওয়ার পর চাঁদাবাজিতে ওসি জলিল আরো বেপরোয়া হয়ে উঠেন। শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশের গ্রেফতার বাণিজ্যে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেন সাধারণ জনগণ। সামান্য অজুহাতে নিরীহ মানুষকে গ্রেফতার করে আদায় করা হতো লাখ লাখ টাকা। এমন অভিযোগ ডালপালা মেলে হাইকমান্ডের নজরে আসে। হোটেলের অবৈধ ব্যবসা, পান ব্যবসায়ী-সিগারেটের ক্ষুদ্র দোকানদারের কাছ থেকেও চাঁদা আদায়, রেস্টহাউস, গেস্টহাউস, রিসোর্ট, জুয়ার আসর ও মাদক ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে আদায় করা হতো নিয়মিত চাদা। চলতি বছরের ১৩ মে ওসি আব্দুল জলিলসহ ৬ পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে সাংবাদিক নির্যাতনের অভিযোগ এনে মৌলভীবাজার চীফ জুডিশিয়্যাল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেন সাংবাদিক সাইফুল ইসলামের স্ত্রী রুমি বেগম। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে মৌলভীবাজার ডিবির ওসিকে তদন্ত প্রতিবেদন প্রেরণের নির্দেশ দেন। নতুন ওসি মাহবুবুর রহমানের যোগদানে শ্রীমঙ্গলের সর্বমহলে স্বস্তি ফিরে এসেছে। সবাই আশা করছেন নবাগত ওসি মাহবুবুর রহমান কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণের মাধ্যমে শ্রীমঙ্গল থানার আইনশৃংখলা পরিস্থিতির উন্নতি ঘটাবেন। ওসি আবদুল জলিলের জামানায় নাশকতা ও শ্রীমঙ্গলের ভৈরববাজারে ট্রাকে পেট্রোল বোমা হামলায় জড়িত এজাহার ভূক্ত এবং প্রকৃত আসামীকে গ্রেফতার করেননি। পেট্রোল বোমা হামলাকারী অপরাধীদের সঙ্গে সখ্য গড়ে তুলে ওসি আবদুল জলিল কাড়ি কাড়ি টাকা কামিয়েছেন বলে অজস্র অভিযোগ রয়েছে। প্রকাশ্যে ওসি আবদুল জলিলের অভয়ে তার নাগের ঢগায় চলাফেলা করতে দেখা যায় নাশকতা মামলার আসামীরা। আর নিরপরাধ মানুষকে ধরে এনে বহুল আলোচিত জজ মিয়া নটকের অবতারড়না করতে পিছপা হননি ওসি আবদুল জলিল। ওসি আবদুল জলিলের জামানায় প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ানো পেট্রোল বোমা হামলাসহ নাশকতাকারীতের গ্রেফতার করে আইনের কাছে সোপর্দ করবেন নবাগত ওসি মাহবুবুর রহমান এমনটাই আশা করেন শ্রীমঙ্গলবাসী।

Share This:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*