ব্রেকিং নিউজ
মৌলভীবাজারে সৈয়দ শাহ মোস্তফা (রহঃ)-এর ওরস ও ঐতিহ্যবাহি ভাতের মেলা শুরু

মৌলভীবাজারে সৈয়দ শাহ মোস্তফা (রহঃ)-এর ওরস ও ঐতিহ্যবাহি ভাতের মেলা শুরু

এম এ মোহিত:  যথাযোগ্য মর্যাদায় শুক্রবার বিকাল থেকে মৌলভীবাজারে শুরু  হয়েছে তিনদিন ব্যাপি হযরত সৈয়দ শাহ মোস্তফা (রহঃ)-এর ৬৭৫তম ওরস। অলিকূলের শিরোমনি সিলেটে হযরত শাহ জালাল(রহঃ) এর ৩৬০ আউলিয়ার অন্যতম সহচর হযরত1 সৈয়দ শাহ মোস্তফা বোগদাদী শের সওয়ার চাবুকমার (রহঃ) এর ৬৭৫তম ওরস মোবারক অনুষ্ঠিত হচ্ছে মৌলভীবাজার শহরে এই অলির মাজার প্রঙ্গণে।
দিবসটি উপলক্ষে ১৫ জানুয়ারি শুক্রবার বাদ আছর মিলাদ মাহফিল, গরু জবেহ্ ও বাদ এশ্ াজিকির আছকার অনুষ্ঠিত হবে দরগাহ প্রাঙ্গণে। শনিবার সকাল ৮টায় মাজারে গিলাফ চরানো, বাদ আছর মিলাদ মাহফিল ও শিরণী বিতরণ এবং বাদ এশাহ্ আখেরী মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন, দরগাহের মোতাওয়াল্লী ও ওরস উদযাপন পরিষদের আহবায়ক সৈয়দ খলিলুল্লাহ ছালিক জুনেদ।1
ওরস উপলক্ষে দরগাহ প্রাঙ্গণসহ আশেপাশের এলাকা জুড়ে মেলার আয়োজন করা হয়ে থাকে। শাহ সড়কসহ চার প্রায় দুই কিলোমিটার এলাকা জুড়ে পসরা নিয়ে বসেন ব্যবসায়ীরা। মেলায় নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রীর পাশাপাশি বাংলার ঐতিহ্যবাহী বিভিন্ন পসরার দোকান বসে। দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে মেলায় সামগ্রী নিয়ে আসেন দোকানীরা। অনেক ব্যবসায়ী কয়েক দশক ধরে এই মেলায় আসছেন আবার অনেকেই মেলাকে কেন্দ্র করে ব্যবসায়ী হিসেবে মেলায় বিভিন্ন সামগ্রীর পসরা নিয়ে বসেন।
মেলায় কাঠের সামগ্রী খাট, পালঙ্ক, চেয়ার, টেবিল, সোকেস, বই সেলফ, আলমীরা, মাটির তৈরী বাসন-কোসন, তৈজসপত্র, বাঁশের বাঁশি, শিশুদের খেলনা সামগ্রী, খই, মুড়ি, বাতাসা, কাঁচের সামগ্রী, চুড়ি, মালা, প্লাস্টিক, মেলামাইন সামগ্রী,পুরনো কাপড়ের দোকান ইত্যাদি স্থান পায়। শহরের শাহ মোস্তফা সড়ক, বেরি লেইক রোড, সুলতানপুর রোড, শ্রীমঙ্গল রোডে মেলার আয়োজন বিস্তৃত থাকে।2
আগে পিছে এই মেলা এখন তিনদিন ব্যাপী চলে। মেলায় শিশু, নারী ও আবালবৃদ্ধবনিতারা এসে থাকেন। শুধুমাত্র সদর উপজেলা নয়। এই মেলায় জেলার সাতটি উপজেলাসহ দেশের বিভিন্নস্থান থেকে নারী-পুরুষরা এসে থাকেন। তিনদিনে মেলায় লক্ষাধিক মানুষের সমাগম ঘটে।
ওরস উপলক্ষে হাজার হাজার ভক্ত ও অনুরাগীদের আগমন ঘটে মাজার প্রাঙ্গণে। মানত করে অনেকেই আসেন ওলির মাজারে। কেউ মোমবাতি জ্বালিয়ে থাকেন, কেউ আবার মাজারের পাশের পুকুরের শোল ও গজার মাছকে ছোট ছোট মাছ খাওয়ান, কেউ আবার জিকির-আছকার নফল নামাজ আদায় করে ওলিকে উছিলা করে মহান আল্লাহ তায়ালার কাছে নিজের চাওয়া-পাওয়া নিয়ে মিনতি করে দোয়া করেন। এছাড়া কেউ কেউ আবার মানত করে ভাত-তরকারির শিরণীও দিয়ে থাকেন। এ জন্য শাহ মোস্তফার এই মেলাকে ভাতের মেলা বলে থাকেন।3
তবে মেলায় আসা ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করেছেন, দোকানের জন্য সড়কের পাশের জায়গা ভাড়া নিতে অনেক বিড়ম্বনা পোহাতে হয়। মেলার আশেপাশের এলাকার উঠতি বয়সের যুবকরা জায়গা ভাড়া হিসেবে হাত প্রতি ৫শ’ টাকা থেকে শুরু করে আরও বেশি আদায় করছেন। এতে করে ব্যবসায়ীরা আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন। প্রশাসন ও ওরস উদযাপন কমিটির হস্তক্ষেপ কামনা করছেন আগত ব্যবসায়ীরা। এদিকে ওরস ও মেলাকে কেন্দ্র করে প্রশাসনের পক্ষ থেকে দুই স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। আগত মুরিদান, ভক্ত অনুরাগী ও মেলায় আগত জনসাধারণের নিরাপত্তার বিষয়টি বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে প্রশাসন মাজার প্রাঙ্গণসহ আশেপাশের এলাকা ইতিমধ্যে সিসিটিভি ক্যামেরার আওতায় আনা হয়েছে। পুলিশের পাশাপাশি সাদা পোষাকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সার্বক্ষণিক টহলে থাকবে বলে বাংলাকাগজটুয়েন্টিফোরডটকমকে  জানিয়েছেন মৌলভীবাজারের পুলিশ সুপার মোঃ শাহ জালাল।

Share This:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*