ব্রেকিং নিউজ
মৌলভীবাজারের শেরপুরে হামরকোনায় পুলিশের নাকের ডগায় রমরমা জুয়ার আসর

মৌলভীবাজারের শেরপুরে হামরকোনায় পুলিশের নাকের ডগায় রমরমা জুয়ার আসর

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি
মৌলভীবাজার সদর উপজেলার শেরপুরে একদিকে চলছে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের জমজমাট প্রচারণা। তার সাথে তাল মিলিয়ে চলছে রমরমা জুয়ার আসর ও মাদকসেবীদের দৌরাত্ম। ফলে এলাকার আইন শৃংখলা পরিস্থিতিতে মারাত্মক নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে। এতে সাধারণ মানুষের মাঝে অসন্তোষ বিরাজ করছে।
জানা যায়, মৌলভীবাজার মডেল থানার নিয়ন্ত্রিত শেরপুর সদর উপজেলার হামরকোনা গ্রামের খালিছ লন্ডনীর বাড়িতে গত তিন দিন ধরে চলছে ওয়ান টেন ও গুটি জুয়ার আসর। জুয়ার আসরে আসা জুয়ারীদের দেশী বিদেশী ব্রান্ডের মদ দিয়ে আপ্যায়ন করান স্থানীয় আয়োজকরা। পুলিশের উপস্থিতিতে ঘটছে এই সব অনৈতিক কার্যকলাপ। বিনিময়ে প্রতি রাতে সংশ্লিষ্ট ফাঁড়ি ও মডেল থানা পুলিশ পায় লক্ষাধিক টাকা। স্থানীয় মাস্তান, পাতি মাস্তানদের জন প্রতি ৫শ থেকে দুই হাজার টাকা পর্যন্ত দিয়ে থাকে আয়োজকরা। এই আসরের নেতৃত্বদানকারী ২/৩ জন আরো লাখ টাকা ভাগ বাটোয়ারা নেন। স্থানীয়দের অভিযোগে জানা যায়, কুশিয়ারা নদীর তীরে ব্রা‏হ্মণগ্রামের নিকটবর্তী অক্সির ঘাট নামে পরিচিত স্থানে রাত ১০টার পর সারি সারি দামী প্রাইভেট গাড়ি রেখে জুয়ার আসরে যান আগতরা। সিলেট বিভাগের বড় বড় জুয়ারীদের আগমন ঘটে এ আসরে। ওয়ান টেনের বোর্ডে একেক রাতে ৩০ থেকে লাখ টাকার খেলা হয় বলে একাধিক সুত্র জানায়।অপর একটি সুত্র জানায়, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন থাকায় নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারীদের অনেকে সমর্থন হারানোর ভয়ে জুয়া ও মাদকসেবীদের বিরুদ্ধে অবস্থান নিচ্ছেন না। তাছাড়া জুয়ারীদের অনেকে দিনে মেম্বার, চেয়ারম্যান প্রার্থীদের জনসংযোগে কাজ করে যা উপার্জন করে তা জুয়ার আসরে খরচ করে এ কথা জানালেন।
মৌলভীবাজার মডেল থানার ওসি অকিল উদ্দিন জানান জুয়ার আসর বসানো হলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাহিদ বলেন, জুয়ার আসর সমাজে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। সমাজ কলুষিত হয় এমন কর্মকান্ড কোথাও পরিচালিত হলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Share This:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*