ব্রেকিং নিউজ
পাকিস্তান এখনও বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে-নৌ মন্ত্রী শাজাহান খান

পাকিস্তান এখনও বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে-নৌ মন্ত্রী শাজাহান খান

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:পাকিস্তান এখনও বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। তাই তাদেরকে অবশ্যই ক্ষমা চাইতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান। তিনি বলেন, পাকিস্তান আমাদের দেশে জঙ্গীদের মদদ দিচ্ছে। বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে নস্যাৎ করার জন্য তারা চেষ্টা করছে। বিএনপি, জামায়াত এখনও অখন্ড পাকিস্তান সৃষ্টির চেষ্টা করছে।নৌ-পরিবহন মন্ত্রী মো: শাহাজান খান মৌলভীবাজার ও হবিগঞ্জে পৃথক পরিবহন শ্রমিক সমাবেশ ও সংবর্ধনা সভায় এ কথা বলেন, মৌলভীবাজারের বেরীরপাড় মিনি বাসস্ট্যান্ডে বুধবার সন্ধ্যায় আয়োজিত সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন মৌলভীবাজার জেলা পরিবহন সমিতির সভাপতি সৈয়দ মফচ্ছিল আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নেছার আহমদ, মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়র ও জেলা যুবলীগের সভাপতি কেন্দ্রীয় যুবলীগের কার্যনির্বাহী কিমিটির সদস্য ফজলুর রহমান সহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।
বুধবার দুপুরে হবিগঞ্জ জেলা পরিবহন মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সাথে মতবিনিময় শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।
এ সময় তিনি দুই মন্ত্রীর সাজার বিষয়ে বলেন, তাদের পদত্যাগের কোন বিধান নেই। নৈতিক স্খলনজনিত কারণে যদি তাদের সাজা হতো তবে তাদের মন্ত্রীত্ব চলে যেতো। তিনি আরও বলেন, পাকিস্তানের কাছে বাংলাদেশের ৩৫ হাজার কোটি টাকা পাওনা আছে। এই টাকা উদ্ধার করতে হবে। তিনি ক্রিকেট খেলায় পাকিস্তানকে সমর্থন করা উচিত নয় বলে মন্তব্য করেছে।
সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতি মো. ফজলুর রহমান চৌধুরীর সভাপতিত্বে এতে বক্তৃতা করেন অ্যাডভোকেট মো. আবু জাহির এমপি, নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব অশোক মাধব রায়, শ্রমিক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারন সম্পাদক ওসমান আহমেদ, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী, সজিব আলী ও শঙ্খ শুভ্র রায় প্রমুখ।

পরে মন্ত্রী সাকিট হাউজে জেলা প্রশাসন আয়োজিত আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ গণবিচার আন্দোলনের কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে হবিগঞ্জের মুক্তিযুদ্ধা সংসদ, সড়ক পরিবহন শ্রমিক, সোনালী ব্যাংক ও অন্যান্য ব্যাংক এবং বিদ্যুৎ নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন পেশার নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় সভায় অংশ গ্রহণ করেন।

Share This:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*