ব্রেকিং নিউজ
তনুর হত্যাকারীদের ধরিয়ে দিতে পারলে এক লক্ষ টাকা পুরস্কার

তনুর হত্যাকারীদের ধরিয়ে দিতে পারলে এক লক্ষ টাকা পুরস্কার

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি : মৌলভীবাজার জজ  কোর্টের সামনে বৃহস্পতিবার দুপুরে প্রতিবাদী মানববন্ধন কর্মসুচি পালন করে প্রগতিশীল ছাত্র সমাজ।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের শিক্ষার্থী নাট্যকর্মী সোহাগী জাহান তনুকে ধর্ষন ও হত্যার প্রতিবাদে হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবীতে সকাল ১১টায় প্রতিবাদী মানববন্ধন কর্মসুচি পালন করে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আলী হোসেনের স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে তিনি বলেছেন, সোহাগী জাহান তনুর হত্যাকারীদের ধরিয়ে দিলে তিনি এক লক্ষ টাকা পুরস্কার দেবেন। এই প্রেস বিজ্ঞপ্তিটির সত্যতা যাচাই করতে  এক প্রতিবেদক মুঠোফোনে আলাপ হয় সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আলী হোসেনের সাথে। আলী সত্যতা স্বীকার করে বলেন, নাট্যকর্মী ও কুমিলা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী সোহাগী জাহান তনুকে ধর্ষণ ও হত্যার প্রতিবাদে সিলেট জেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে সিলেটে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ ঘোষনা করবে। তিনি আরো বলেন, যদি কেউ তনুর হত্যাকারীদের ধরিয়ে দিতে পারেন তাহলে তিনি তাকে ব্যক্তিগত ভাবে নগদ এক লক্ষ টাকা পুরস্কার দেবেন। তনুর হত্যাকারীদের পরিচয় জানলে তার ব্যক্তিগত মুঠোফোনে-০১৭১১৯৭১২৪২ নাম্বারে যোগাযোগ করার জন্য তিনি আহবান জানান।

প্রশাসনকে ৪৮ ঘণ্টা সময়সীমা বেঁধে দিয়েছেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের শিক্ষার্থীরা। দাবি পূরণ না হলে আজ বৃহস্পতিবার কুমিল্লা রেললাইন অবরোধসহ নগরীর কান্দিরপাড় এলাকায় বিক্ষোভের হুমকি দিয়েছেন তারা। তনু হত্যার প্রতিবাদে ঢাকায় বিক্ষোভ করে বেশ কয়েকটি সংগঠন বাংলাদেশে কুমিল্লা সেনানিবাস এলাকায় একজন শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের পর হত্যার ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার অভিযোগ তুলে কুমিল্লা এবং রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন সংগঠন বিক্ষোভ করেছে। তাঁর পরিবারও ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত এবং বিচার দাবি করেছে।

গত রোববার কুমিল্লা সেনানিবাসেরই বাসিন্দা সোহাগী জাহান তনু নামের ঐ শিক্ষার্থীর মৃতদেহ পাওয়া যায় ।

সোহাগী জাহান তনুর বাবা কুমিল্লা সেনানিবাসে বোর্ডে একজন বেসামরিক কর্মচারী।সেই সুবাদে সেনানিবাসে কোয়াটারে তাদের বসবাস ।তিন ভাইবোনের মধ্যে সবার ছোট সোহাগী জাহান তনু কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজে ইতিহাস বিভাগে দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী ছিলেন। তাঁকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ তুলে তাঁর কলেজসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা বুধবার কুমিল্লায় বিক্ষোভ করে। ঢাকাতেও শাহবাগ এলাকায় গণজাগরণ মঞ্চ এবং ছাত্র ইউনিয়নসহ বিভিন্ন সংগঠন বিক্ষোভ করেছে। সোহাগী জাহান তনু লেখাপড়ার পাশাপাশি তাঁর কলেজে নাটকসহ সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের সাথেও জড়িত ছিলেন। টানাটানির সংসারে তিনি কুমিল্লা সেনানিবাসের ভিতরেই টিউশনি করে নিজের খরচ যোগাতেন।

তাঁর বড় ভাই নাজমুল হোসেন গণমাধ্যমকে বলেছেন, গত রোববার ২০শে মার্চ বিকেলে তাঁর বোন তনু টিউশনি করতে গিয়েছিল। কিন্তু রাত আটটাতেও না ফিরলে তাদের মা খুঁজতে রাস্তায়  যান। তাঁর বোন যে বাসায় পড়াতে যেতেন, সেই বাসায় খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সন্ধ্যা সাতটাতেই তনু চলে গেছে। রাত দশটার দিকে তাদের বাবা বাসায় ফিরলে তখন আবার তারা খুঁজতে বের হন। যে পথ দিয়ে টিউশনির বাসায় যেতেন, সেই পথেই সেনানিবাসের ভিতরে একটি কালভার্টের নীচে মৃতদেহ পাওয়া যায়।

Share This:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*