ব্রেকিং নিউজ
কমলগঞ্জে কালবৈশাখীর ছোবল বসতঘর গাছ-পালা তছনছ: ভেঙেছে বিদ্যুতের খুুঁটিও

কমলগঞ্জে কালবৈশাখীর ছোবল বসতঘর গাছ-পালা তছনছ: ভেঙেছে বিদ্যুতের খুুঁটিও

এম এ মোহিত,কমলগঞ্জ থেকে ফিরে:
কালবৈশাখী ঝড়ের ছোবলে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে ঘর-বাড়ি উড়ে গেছে। শত শত গাছ-পালা উপড়ে ও বিদুতের ভেঙ্গে লন্ডভন্ড  হয়ে  গেছে।
কমলগঞ্জের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া 1493434966630কালবৈশাখী ঝড়ে শতাধিক ঘর-বাড়ি বিধস্ত ও গাছ-পালা উপড়ে পড়েছে। এ ঝড়ে সবচেয়ে  কমলগঞ্জের আদমপুর ও ইসলামপুর এই দুই ইউনিয়ন বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। প্রতিটি বাড়ি-ঘর এবং গাছ পালা ভেঙ্গে পড়েছে। কমলগঞ্জ- চম্পারায় চা-বাগানের ৩৩ কেভি বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইনের ইসলামপুর এলাকায় ৫টি খুঁটি ভেঙ্গে পড়েছে ক্ষেতের মাঠে। এ কারণে প্রায় ২৫ ঘন্টা ধরে ঐ এলাকার অন্তত ১০টি চা বাগানসহ কমলগঞ্জে বিদ্যুৎ নেই। কখন বিদ্যু সরবরাহ স্বাভাবিক হবে কেউ বলতে পারছে না। একাধিক স্থানে বিদুতের তার ছিঁড়ে গেছে। বিদ্যুৎ বিহীন অবস্থায় রয়েছে পুরো কমলগঞ্জের গ্রামাঞ্চল। স্থানীয় লোকজন জানান, শুক্রবার সন্ধ্যায় হঠাৎ কালবৈশাখীর ছোবল আঘাত হানে। প্রায় দুই ঘন্টা ব্যাপি ঝড় ও ভারি বৃষ্টিপাতের সঙ্গে শিলাবৃষ্টিতে জন জীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। কমলগঞ্জ-আদমপুর,কমলগঞ্জ-ইসলামপুর সড়ক যোগাযোগ শনিবার সকাল পর্যন্ত বন্ধ থাকে। ১৫টি বৈদ্যুতিক খুঁটি ভেঙ্গে পড়ে। ঘুর্ণিঝড়ে আহত হয়েছেন কমপেক্ষ ১৫ জন। ঘূর্ণিঝড়ে রাস্তার উপর একাধিক গাছ উপড়ে পড়লে শুক্রবার সন্ধ্যা থেকে কমলগঞ্জ উপজেলার ভানুগাছ-পাত্রখোলা সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিল।
আকস্মিকভাবে আকাশ কালো হয়ে কমলগঞ্জ উপজেলার সীমান্তবর্তী ইসলামপুর, আদমপুর ও মাধবপুর ইউনিয়নের উপর দিয়ে ঘূর্ণিঝড় বয়ে যায়। এ ঘূর্নিঝড়ে ইসলামপুর ইউনিয়নের চাম্পারায় চা বাগান, কুরমা চা বাগান, কোণাগাঁও, শ্রীপুর, নয়াবাজার, আদমপুর ইউনিয়নের তেঁতইগাঁও, মধ্যভাগ, নঈনারপার, হেরেঙ্গাবাজার ও মাধবপুর ইউনিয়নের মাধবপুর বাজার এলাকা, পাত্রখোলা চা বাগান ও ধলই চা বাগান এলাকায় দেড় শতাধিক কাঁচা ঘর সম্পূর্ণরুপে ভেঙ্গে গেছে। অনেক ঘরের চাল উড়ে গাছেল উঁচু ডালে গিয়ে আটকেছে। আবার অনেক ঘর মাটির সাথে মিশে গেছে। আবার আরও প্রায় দুই শত ঘর আংশিকভাবে বিধ্বস্ত হয়েছে।

Share This:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*