ব্রেকিং নিউজ
উপজেলা চেয়ারম্যানের ধমক, শিক্ষা কর্মকর্তা অজ্ঞান

উপজেলা চেয়ারম্যানের ধমক, শিক্ষা কর্মকর্তা অজ্ঞান

খুলনা প্রতিনিধিঃ
উপজেলা চেয়ারম্যানের ধমকে অসুস্থ হয়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছেন উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সূধা রানী দাস। মঙ্গলবার বিকেলে বটিয়াঘাটা উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয়ে এই অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে।

বটিয়াঘাটা উপজেলার চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ উপজেলা সভাপতি আশরাফুল আলম খান বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সূধা রানী দাস ও এক নেতার ছেলে বদলী ও নিয়োগ বাণিজ্য করে আসছে। সরকারি নীতিমালা উপেক্ষা করে টাকার বিনিময়ে বদলীর সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পাওয়ার পর মঙ্গলবার বিকেলে ওই কর্মকর্তার অফিসে গিয়ে বকাঝকা ও উচ্চ স্বরে ধমক দেন। পরে শুনেছেন সূধা রানী স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছেন।

তিনি আরও জানান, সূধা রানী বয়স্ক মহিলা বিধায় হয়ত ধমক শুনে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

বটিয়াঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহাতাব উদ্দিন জানান, এ বিষয়ে জানতে আশরাফুল আলমের সঙ্গে দেখা করেছেন। তার কাছেও প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুর্নীতি-অনিয়ম ও সুনির্দিষ্টভাবে ঘুষের বিনিময় বদলী বাণিজ্যের অভিযোগ তুলে ধরেন। তবে এর আগে তাদের কাছে কেউ কোনো অভিযোগ করেনি।

এ বিষয়ে সূধা রানীর মোবাইলে ফোন করলে তার এক স্বজন জানান, এখনও তার জ্ঞান ফেরেনি। তারা আর কোনো কথা বলতে রাজি হননি।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয়ে কর্মরত এটিও মতিয়ার রহমান ও মাসুদ রানা জানান, তারা গালিগালাজ শুনে সূধা রানী দাসের কক্ষে গিয়ে চেয়ারম্যানকে শান্ত হতে অনুরোধ করেন। চেয়ারম্যান এই সময় ঝালাবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে উচ্চ স্বরে কথা বলছিলেন।

Share This:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*